আনন্দ শোভাযাত্রায় বর্ণিল প্রস্তুতি



( ব্লগার )

নভেম্বর 25, 2017

বাংলাদেশ

5

2,325

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণকে ইউনেস্কো বৈশ্বিক ঐতিহ্যের তালিকা বা মেমোরি অব দ্য ওয়ার্ল্ড ইন্টারন্যাশনাল রেজিস্টারে অর্ন্তভুক্ত করার স্বীকৃতির উদযাপনের জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীরা।

আনন্দ শোভাযাত্রায় অংশ নিতে শনিবার সকালে থেকে বঙ্গবন্ধুর ছবি, নানা রঙের ব্যানার, ফেস্টুনসহ  রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় সমবেত হতে শুরু করেছেন সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। তাদের সঙ্গে বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষও এ আনন্দ শোভাযাত্রায় অংশ নেবে বলে জানা গেছে।

অনুষ্ঠানের বিষয়ে শুক্রবার মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম এক প্রেস ব্রিফিংয়ে জানান, রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশের সব জেলা ও উপজেলায় আনন্দ শোভাযাত্রা, রচনা ও কুইজ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়াও মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক চলচ্চিত্র প্রদর্শন করা হবে। বিদেশে বাংলাদেশের মিশনগুলোতে একই ধরণের অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে।

ছবি: মানিক সাহা

বেলা ১২টায় ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধু ভবনে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণের মধ্য দিয়ে দিনব্যাপী অনুষ্ঠানের শুরু হবে।এরপর ৭ই মার্চের ভাষণের সেই ঐতিহাসিক স্থান সোহরাওয়ার্দী উদ্যান অভিমুখে শুরু হবে আনন্দ শোভাযাত্রা।

প্রধান অতিথি হিসেবে বেলা ৩টায় সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের সমবেশে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভাষণ দেওয়ার কথা রয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর ভাষণের পর বিকাল ৪টায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও বিকাল ৫টায় মনজ্ঞ লেজার শোর আয়োজন করা হয়েছে।

যান চলাচলে ট্রাফিক বিভাগের নির্দেশনা:
আনন্দ শোভাযাত্রা উপলক্ষ্যে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) ট্রাফিক দক্ষিণ বিভাগ কিছু কিছু এলাকায় যান চলাচল নিয়ন্ত্রণ করা হবে বলে জানিয়েছে। এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, আনন্দ শোভাযাত্রার রুট-বঙ্গবন্ধু স্মৃতি যাদুঘর থেকে আরম্ভ করে মিরপুর রোডের রাসেল স্কয়ার ক্রসিং হয়ে কলাবাগান দিয়ে সাইন্সল্যাব বামে মোড় নিয়ে বাটা সিগন্যাল-কাঁটাবন ক্রসিং হয়ে শাহবাগ ডানে মোড় নিয়ে ছবির হাট হয়ে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান পর্যন্ত।

ম্যাপ: ডিএমপি

একটি ট্রাফিক ম্যাপ দিয়ে এসব এলাকায় এড়িয়ে যান চলাচলে পরামর্শ  দেয়া হয়েছে।

গত ৩১ অক্টোবর ফ্রান্সের প্যারিসে সংস্থাটির সদর দপ্তরে দীর্ঘ বৈঠকের পর মেমোরি অব দ্য ওয়ার্ল্ড কর্মসূচির আন্তর্জাতিক উপদেষ্টা কমিটি (আইএসি) বৈশ্বিক ঐতিহ্যের তালিকা বা মেমোরি অব দ্য ওয়ার্ল্ড ইন্টারন্যাশনাল রেজিস্টার-এ বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণকে অর্ন্তভুক্ত করে।

রিয়াদ নোমান

সামান্য লিখার চেষ্টা! ইহা সামান্য নয় ।

Related Posts