আর দুটো আছে, একটি আবার মৃত্যুপথযাত্রী!



( মডারেটর )

ডিসেম্বর 22, 2017

বিবিধ

6

867

পৃথিবীর যেসব প্রাণীর অস্তিত্ব বিলোপের মুখে, তাদের মধ্যে একটি সুমাত্রীয় গন্ডার। জানলে অবাক হবেন, মালয়েশিয়ায় একটিমাত্র সুমাত্রীয় স্ত্রী গন্ডার বেঁচে রয়েছে।

দুঃখভারাক্রান্ত হৃদয় নিয়ে বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, শেষ নিশানাটিও বিলুপ্তির পথে। সে খুবই অসুস্থ, রীতিমতো মৃত্যুপথযাত্রী।

মালয়েশিয়ার তার বাস। সেখানে বেঁচে থাকা দুটো সুমাত্রিয়ান গন্ডারের মধ্যে একটি হলো ‘আইমান’। বর্নিও আইল্যান্ডের এক ওয়াইল্ডলাইফ রিজার্ভে থাকে এই স্ত্রী প্রজাতির গন্ডারটি। শেষ পুরুষটির নাম ‘তাম’। এই দুজনই সুমাত্রার গন্ডারের ভবিষ্যত প্রজন্মের ভরসা। তাদেরকে নিয়ে ব্রিডিং প্রগ্রাম গ্রহণ করেছিলেন বিজ্ঞানীরা।

সাবাহ ওয়াইল্ডলাইফ ডিপার্টমেন্টের পরিচালক অগাস্টিন তুগা জানান, বেশ কয়েক বছর আগে বনের এক কাদাময় এলাকা থেকে ধরে আনা হয় আইমানকে।

কিন্তু তার অবস্থা সংকটাপন্ন। জরায়ুতে টিউমার হয়েছে তার। সেখান দিয়ে অনবরত রক্ত ঝরছে।

তাকে নিজের এলাকা থেকে তুলে এনে সাবাহ স্টেটে রাখা হয়েছে। অভিজ্ঞ পশুচিকিৎসকরা তার চিকিৎসায় নিয়োজিত। কিন্তু সে শুধু পানি খাচ্ছে। আর কোনো খাবার মুখে তুলছে না। কিন্তু তাকে সুস্থ করে তুলতে পারবেন বলেই আশা রাখেন বিজ্ঞানীরা।

তুগা বলেন, এর আগেও আইমান একই সমস্যায় ভুগছিল। কিন্তু তখন তাকে খুব সহজে সুস্থ করে তোলা গেছে।

এর আগে জুনে আরেকটি স্ত্রী প্রজাতির গন্ডার ত্বকের ক্যান্সারে ভুগে মারা যায়। এর পর মালয়েশিয়ায় সুমাত্রীয় গন্ডার বলতে আইমান আর তামের অস্তিত্বই টিকে থাকে।

এরা গন্ডার প্রজাতির মধ্যে সবচেয়ে ছোট আকারের। এশিয়ার একমাত্র গন্ডার প্রজাতি যাদের দুটো শিং আছে। মালয়েশিয়া ২০১৫ সালেই সুমাত্রীয় গন্ডারের অস্তিত্ব হুমকির মুখে ঘোষণা দেন।

ইন্দোনেশিয়ায় ১০০টিরও কম সুমাত্রীয় গন্ডার রয়েছে। সুমাত্রা আইল্যান্ডে তারা ছোট এক গন্ডারের পাল। বর্নিওর ইন্দোনেশিয়ার অংশে থাকে তারা। কৃষি জমির বিস্তৃতির কারণে তাদের সংখ্যা নাটকীয়ভাবে কমে আসছে। বনের স্বাভাবিক পরিবেশ নষ্ট হয়েছে। পাশাপাশি তাদের দামি শিং অবৈধ পশু শিকারীদের টার্গেট।

সুমাত্রীয় গন্ডার লালচে ঘন লোম নিয়ে জন্মগ্রহণ করে। এর কারণে তাদের ‘লোমশ গন্ডার’ বলেও ডাকা হয়।
সূত্র : ইয়াহু

সেলিম

লেখক

Related Posts