শীতের সেরা কয়েকটি প্যান্ট কালেকশন!



এক সময় জিন্স মানেই ছিল অনেক মোটা কাপড় আর শীতের সময়ে পরার জন্য আরামদায়ক এমন পোশাক। কিন্তু সময়ের সঙ্গে বদলে গেছে জিন্স। জিন্সের সাথে কার্গো, গ্যাবার্ডিন ও কটন প্যান্টগুলো জায়গা করে নিয়েছে। যেহেতু তরুণ-তরুণীরা দিনের অনেকটা সময় বাইরে থাকে, তাই তাদের আরামের কথা ভেবেই এখন জিন্সের প্যান্ট তৈরি করা হয়। জিন্স প্যান্টের রং ও সুতার ব্যবহারে এখন মাথায় রাখা হয় ঋতু। তাই শীত-গ্রীষ্ম সব সময়ই জিন্স পরা আরামদায়ক। আর তাই ফ্যাশনেবল কিছু প্যান্টের ও দরদাম নিয়ে আজকের এই টিউন।

সবসময় জিন্স চলনসই হলেও শীতের এই সময়টাতে জিন্স প্যান্ট বেশ চলছে। শীত উপলক্ষ্যে জিন্স প্যান্টের বাজার বেশ নড়ে চড়ে বসেছে। স্টাইলিশ সব জিন্সের পশরা সাজিয়ে বসেছে ফ্যাশন হাউজ গুলো। এবারে বিভিন্ন বয়সের লোকেরা পছন্দের পোশাকের তালিকায় একটি বড় জায়গা দখল করে আছে আঁটসাঁট-প্রকৃতির জিন্স। অনেকেই আবার একটু ঢিলেঢালা প্যান্ট পরতেই বেশি পছন্দ করে।

শীতে উপলক্ষ্যে মোটা কাপড়ের গ্যাবাটিন প্যান্টের কদর বেশ বেড়ে গেছে। গ্যাবাটিন প্যান্ট অনেক নরম কাপড়ের হওয়ায় এর জনপ্রিয়তা বেড়েছে অনেক। গত বছর থেকেই নানা ধরনের উজ্জ্বল রঙের গ্যাবার্ডিন প্যান্টের চল দেখা যাচ্ছে। আগাগোড়া ঢোলা প্যান্টের বদলে এখন বেশি চলছে ন্যারো শেপ। প্যান্টের পকেট ও পাশে নানা ধরনের কাট ও নকশা চোখে পড়ছে। সেই ‘ক্যাজুয়াল ডে’তে শীতের মানাসই পোশাকের সঙ্গে একটা গ্যাবার্ডিন প্যান্ট পরে যেতে পারেন।

কটন ও কার্গো প্যান্ট ও শীতের তরুনদের আকর্ষণীয় পরিধেয়। কটন প্যান্টগুরো বেশ ন্যারো এবং নরম কাপড়ের হওয়ায় পরে বেশ আরাম। শীতের বিকেলে কিংবা সকালে পরে বের হওয়ার জন্য এটি অবশ্যই মানান সই হবে। আর যারা চাকচিক্য পছন্দ করেন তারা অবশ্য কার্গো প্যান্ট বেছে নিতে পারেন। বাহারি ডিজাইনের কার্গো প্যান্ট খুব সহজেই আপনাকে স্টাইলিশ করে তুলবে।

দেশের বিভিন্ন ফ্যাশন হাউস গুলোতেই শীতের সেরা প্যান্ট গুলো পেয়ে যাবেন। তবে আকর্ষনীয় ও বাহারি ডিজাইনের স্টাইলিশ ও গর্জিয়াস প্যান্ট কিনতে চাইলে নির্ভর করতে পারেন দেশের সবচেয়ে বড় অনলাইন শপিংমল আজকের ডিলের উপর। আজকের ডিলে রয়েছে বাহারি সব প্যান্টের এক্সক্লুসিভ কালেকশন। নিজের জন্য অথবা প্রিয়জনকে উপহার হিসেবে দেয়ার জন্য প্যান্ট কিনতে এক্ষনি এই লিংকে ক্লিক করুন

মোস্তাফিজ আর রহমান

আসসালামু আলাইকুম,, আমি মোস্তাফিজ, ডাক নাম উল্লাস । আপনি আমার এবাউট পড়ছেন এর মানে আপনি এই মুহুর্তে আমার প্রোফাইলে আছেন এবং তার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ । আসলে আমি যখন থেকে ইন্টারনেট জগতের সাথে পরিচিত হয়েছি ঠিক তখন থেকেই অনলাইনে বিভিন্ন লেখকদের লেখা পড়তাম আর তাদের কাছ থেকেই অনুপ্রাণিত হয়ে বিভিন্ন ব্লগে লেখালেখি করার চেষ্টা করতাম । আমি ২০১২ তে এসএসসি পরীক্ষা দিয়েছিলাম , তারপর ওয়েবসাইট এবং সফ্টওয়্যার ডেভেলপমেন্ট এর উপর কোর্স করে পড়াশুনার পাশাপাশি ফ্রিল্যান্সিং এ কাজ করতে থাকি । ব্লগিংএ খুব বেশি আকর্ষন থাকার কারনে ২০১৭ এর ৮ই অক্টোবর ”জনতা ব্লগ” এর প্রতিষ্ঠা করি। আমি সবসময় চেষ্টা করেছি ব্লগ এ মানসম্মত কিছু লোখার জন্য, তাই পাঠকদেরে কাজে লাগবে সেই সমস্ত টপিক গুলোর উপরেই লেখার চেষ্টা করি । ”জনতা ব্লগ” এর অন্যান্য লেখকদেরকে অসংখ্য ধন্যবাদ জানাই তাদের মুল্যবান প্রকাশনা গুলোর জন্য । একটা ব্লগের সবচেয়ে মুল্যবান সম্পদ হলো সেই ব্লগ এর নিয়মিত যারা লেখক এবং পাঠক আছেন, তাহাদের অবদান সত্যিই অনস্বীকার্য। তাই আপনাদের আবারও ধন্যবাদ জানাই ”জনতা ব্লগ” এর হাতে হাত রেখে পাশাপাশি চলার জন্য । আপনারা পাশে আছেন বলেই আমরা এ পর্যন্ত এগিয়ে আসতে পেরেছি ।

Related Posts